আপনি এখানে
প্রচ্ছদ > সাহিত্য > গল্প

মিথিলা

মঈনুল রাকীব: মিথিলা, রূপা ও রিতু। তিন বোন। স্কুলে থাকতে রূপার সাথে পরিচয় ছিল। হুমায়ূন আহমেদের গল্পের 'অসম্ভব রূপবতী' ক্যাটেগরির সুন্দরী ছিল এরা তিন বোন। সবচেয়ে রূপসী ছিল মিথিলার। আমি তাঁকে দেখিনি। গল্পটি মিথিলার। আমি যখন ক্লাস নাইনে পড়ি তখন রূপার কাছে শুনেছি মিথিলার কথা। টিফিনের ঘণ্টা বাজলে খেয়ে দেয়ে স্কুলের মাঠের

মমতা, পবন, মোদী এবং তিস্তা নদী

শেখ রোকন: ইহকালে তিস্তা নদী অন্যায়ভাবে আটকে রাখার দায়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী পবন চামলিঙ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পরকালে প্রশ্নের মুখে পড়েছেন। তিনজনই সটান নিজেদের দায় অস্বীকার করলেন এবং বললেন, বাকি দু'জনের কারণেই বাংলাদেশের সঙ্গে ন্যায্য সমঝোতায় পৌঁছা যায়নি। তাহলে পরীক্ষা হয়ে যাক, কার দায় কতটুকু। তিনজনকে

প্রাণের ২৭, প্রাণের জাহাঙ্গীরনগর

ভোর সকালবেলা অপু বাসায় এসে হাজির। আমি বললাম "কিরে এতো সকাল বেলা, কি হইছে?" "যাবি না?" "কোথায় যাবো?" "তোরে না কইলাম কাল, আজ জাহাঙ্গীরনগর এর ভর্তি পরীক্ষা। " রাগে ওর ঠোট ঝুলে গেছে। অপু যে কিনা নিজেকে শাহরুখ খান ভাবতো নিজেকে। চেহারা খারাপ না খালি ঠোট দুইটা ঝুলে থাকতো আর চুলে দিত রাহুল

সেই রাতের কথা বলতে এসেছি

কাউসার চৌধুরীঃ  ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ রাতে, পাকিস্তানি বাহিনী- তাদের দোসরদের সহযোগিতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যে গণহত্যা চালায়, তাকে কেন্দ্র করে আমি একটি প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করেছিলাম। ওটার শিরোনামঃ সেই রাতের কথা বলতে এসেছি। ইংরেজী ভার্সনঃ Tale of the Darkest Night. ৪২ মিনিটের চাইতেও কয়েক সেকেন্ড বেশী দৈর্ঘ্যের এই প্রামাণ্যচিত্রটি আজো বেশ আলোচিত।

ভারতীয়দের প্রতি বাংলাদেশী জনগণের আন্তরিকতা

অরিন্দম নাথঃ প্রকাশের সাথে আমার দেখা বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জে ৷ এখন তার বয়স প্রথম পরিচয়ের দ্বিগুণ ৷ এবারের পরিচিতির কথা শোনাবার আগে প্রথমবারের পরিচিতির কথা শুনাই ৷ সেবার আমার সাথে করমচাঁদ ছিলেন ৷ প্রত্যুষ-বাবু আজ প্রয়াত ৷ তিনি বেঁচে থাকলে হয়তো খুশি হতেন ৷ প্রকাশ সৎ পথে জীবিকা নির্বাহ করছে ৷ আমার তখন

অং সান সু চিকে রোহিঙ্গা শিশুদের প্রশ্ন

সকালে ঘুম থেকে উঠেই চমকে উঠলেন অং সান সু চি। জানালার কাঁচ দিয়ে নিচে তাকাতেই দেখতে পেলেন তার বাড়ির সামনে কয়েকশো ছেলে মেয়ে দাঁড়িয়ে আছে। তারা তার বাড়ির দিকে চেয়ে আছে। কিন্তু অবাক করা ব্যাপার হলো তাদের প্রত্যেকের মুখ সাদা কাপড় দিয়ে ঢাকা। দেখে বোঝার উপায় নেই তারা কারা, কোথা

নিরপরাধ ঘুম ও অরুণাভ সিনহা —

কমনওয়েলথএর দরবারে গল্পটি বাংলাতেই পাঠিয়েছিলাম। চার/পাঁচ মাস পর ওখান থেকে জানানো হল, তারা আমার গল্পটিকে শর্টলিস্টে রেখেছেন। গল্পটি অনুবাদ করেছেন অরুণাভ সিনহা। অরুণাভ সিনহাকে চিনি না। তবে তারাই জানালেন, ইনি কমনওয়েলথের তালিকাভূক্ত অনুবাদক। ভারতীয়। আমি অনুবাদটুকু পড়তে চাইলাম। পড়ে আমি তো থ'! নিরপরাধ ঘুম গল্পের শুরুতে জীবনানন্দ দাশের কবিতার একটা উদ্ধৃতি

লক-আপ

সর্দারকে নিয়ে একটি হাস্য কৌতুক ৷ এক সর্দারজির একটি দোকান ছিল ৷ অমৃতসর শহরে ৷ একদিন এক চোর ঢুকেছে দোকানে চুরি করতে ৷ কিন্তু চোর বেচারার বরাত খারাপ ৷ সর্দারজি টের পেয়ে চোরকে হাতেনাতে ধরে ফেললেন ৷ চোরের কমরে রসি বেঁধে একটি টেবিলের পায়ার সাথে আটকে রাখেন ৷ তারপর সোজা

আম্বেদকর ভীতি

ঘরটি বেশ বড়সড় ৷ মেঝেতে ফরাশ পাতা ৷ সাথে একপাশে কয়েকটি কোল-বালিশ ৷ যেন কোন জমিদার বাড়ির জলসাঘর ৷ তবে কোন বাইজী নাচ হচ্ছিল না ৷সময়টা সম্ভবত সকাল ৷ হালকা রোদের তাপ ৷ বিধবা বেশে বয়স্কা এক মহিলা, বেশ কর্তৃত্ব নিয়ে বসেছিলেন ৷ তিনি একটি লোককে কিছু একটা ডিকটেশন দিচ্ছিলেন

সহজিয়াবাবু’র গল্প

আজ রাস পূর্ণিমা ৷ কিছু কিছু বাংলা শব্দ আছে শুনতে খুবই সহজ শোনায় ৷ কিন্তু অর্থের বিচারে জিলিপির প্যাঁচ ৷ একদমই সহজ নয় ৷ এমনি একটি শব্দ সহজিয়া ৷ এতদিন ভাবতাম সহজ কথা যারা সহজে বলে তারাই সহজিয়া ৷ সেই ভিত্তিতেই আমার এক প্রিয় কলিগের নাম রেখেছিলাম সহজিয়াবাবু ৷ পুলিশের

উপরে