আপনি এখানে
প্রচ্ছদ > মধ্যপ্রাচ্য > লজ্জা থাকলে এখনি বেরিয়ে যা দখলদার, শিশু হত্যাকারী: ইসরাঈলীদের কুয়েতি স্পীকার

লজ্জা থাকলে এখনি বেরিয়ে যা দখলদার, শিশু হত্যাকারী: ইসরাঈলীদের কুয়েতি স্পীকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, প্রাচ্যনিউজ:


‘দুনিয়ার সবচেয়ে বিপজ্জনক সন্ত্রাসী কার্যক্রম তথা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসবাদের প্রতিনিধিত্ব করছে অবৈধ ইসরাঈল’ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের আইন প্রণেতাদের গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে এ কথা বলেছেন কুয়েতি স্পীকার মারজুখ আল গনিম। রাশিয়ার সেন্টপিটার্সবার্গে অনুষ্ঠিত আন্তঃসংসদীয় সংঘের (আইপিইউ) ১৩৭ তম সম্মেলনে এই জ্বালাময়ী কথা বলেন তিনি। গনিমের বক্তব্যের পর অবৈধ ইসরাঈলের সংসদীয় প্রতিনিধি দল অপদস্থ হয়ে সভাস্থল ত্যাগ করে। খবর কুয়েতটাইমস ও কুয়েতি নিউজ এজেন্সি।

সভায় অবৈধ ইসরাঈলী প্রতিনিধি দল ফিলিস্তনীদের উপর নির্যাতনের ব্যাপারে অজুহাক দাঁড় করালে তার প্রতিবাদে কথা বলার ফ্লোর চান কুয়েতি স্পীকার মারজুখ আল গনিম। তিনি বলেন, ‘লজ্জা না থাকলে যা ইচ্ছে করা’ (ইসরাঈলী প্রতিনিধিদলের বক্তব্য) এই কথাটি অবৈধ ইসরাঈলের ধর্ষক সংসদ কর্তৃক দেয়া মন্তব্যর জন্যই প্রযোজ্য। ইসরাঈলী প্রতিনিধি দল ও ইসরাঈল রাষ্ট্রের তীব্র সমালোচনা করে মারজুখ বলেন, ‘আপনাদের উচিত ব্যাগ গুছিয়ে এই সভাস্থল ত্যাগ করা কারণ আপনারা দেখেছেন (ইসরাঈলের প্রতি) বিশ্বের প্রতিটি সম্মানিত সংসদের প্রতিক্রিয়া।’ এসময় সম্মেলনে উপস্থিত বিশ্বের প্রায় সকল দেশের প্রতিনিধিরা করতালি দিয়ে এ বক্তব্যে সমর্থন জানায়। এরপর বিক্ষুব্ধ কুয়েতি স্পীকার অবৈধ ইসরাঈলী প্রতিনিধি দলের দিকে আঙুল উঁচু করে বলেন, ‘ যদি এক বিন্দু আত্মসম্মান থাকে তবে এক্ষুণি এখান থেকে বেরিয়ে যা; তোরা দখলদার, তোরা শিশু হত্যাকারী।’ এরপর পুরো সম্মেলনে কুয়েতি স্পীকারের পক্ষে করতালি শুরু হয়। এসময় অবৈধ ইসরাঈলের প্রতিনিধিদলের সকল সদস্যের মুখ ভারী ছিল।

এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সম্মেলনস্থল ত্যাগ করে ইসরাঈলী প্রতিনিধিদল। তাদের এই চলে যাওয়ায় অন্যান্য দেশের প্রতিনিধি দলের মধ্যে স্বস্তি দেখা যায়। কুয়েত নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, স্পীকারের এ বক্তব্য কুয়েতি বাদশাহ’র ফিলিস্তিন বিষয়ক নীতির প্রতিফলন। সোস্যাল মিডিয়ায় এই বক্তব্যটি ভাইরাল হয়ে গেছে।

কুয়েত ও কাতার আরব দেশগুলোর মধ্যে অবৈধ ইসরাঈলের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে কঠোরতা অবলম্বণ করে। মধ্যপ্রাচ্যের এ দুটি ছোট দেশ প্রকাশ্যে ফিলিস্তিনী মুক্তিসংগ্রামকে সমর্থন করে যা সেীদি আরব, মিশর, জর্ডানসহ অনেক আরব রাষ্ট্রের মাঝে দেখা যায়না। কুয়েতি বিমানে ইসরাঈলী কোন যাত্রী উঠতে পারেনা এবং ‍কুয়েতের সাথে ইসরাঈলের কোন বিমান যোগাযোগ নেই। প্রসঙ্গত আইপিইউ এর বর্তমান সভাপতি বাংলাদেশের আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ সাবের হোসেন চেীধুরী।
ছবি/পার্সটুডে।

মন্তব্য করুন

উপরে